কোভিড-১৯: রেকর্ড রোগী শনাক্তের দিনে মৃত্যুও সর্বাধিক

0
391

একদিনেই রেকর্ড ২১ জনের মৃত্যুর মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে নতুন করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৩৪৯ জন।

সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় ৯৭৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করে আরও ১ হাজার ৬০২ জনের মধ্যে সংক্রমণ ধরা পড়ায় দেশে শনাক্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ২৩ হাজার ৮৭০ জন।

বাংলাদেশে ৮ মার্চ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত প্রথম রোগীর খোঁজ মেলার পর দশ দিনের মাথায় প্রথম মৃত্যুর তথ্য আসে। গত দশ সপ্তাহে কখনও এক দিনে এত নতুন রোগী আর এত বেশি মৃত্যু বাংলাদেশকে দেখতে হয়নি।

সারা দেশে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রোগীদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২১২ জন। সব মিলয়ে এ পর্যন্ত মোট ৪ হাজার ৫৮৫ জন সুস্থ হয়ে উঠলেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নিয়মিত বুলেটিনে যুক্ত হয়ে অতিরিক্ত মহাপরিচালক অধ্যাপক নাসিমা সুলতানা সোমবার দেশে করোনাভাইরাস পরিস্থিতির এই সবশেষ তথ্য তুলে ধরেন।

তিনি জানান, গত এক দিনে যারা মারা গেছেন, তাদের মধ্যে ১৭ জন পুরুষ, ৪ জন নারী। তাদের ১২ জন ঢাকা বিভাগের, সাতজন চট্টগ্রাম বিভাগের, একজন সিলেট বিভাগের এবং একজন রাজশাহী বিভাগের।

ঢাকা বিভাগে যারা মারা গেছেন, তাদের মধ্যে ৬ জন ঢাকা মহানগরীর, ২ জন মহানগরীর বাইরে ঢাকা জেলার, ১ জন গোপালগঞ্জের, ১ জন মুন্সীগঞ্জের, ১ জন টাঙ্গাইলের, ১ জন মানিকগঞ্জ জেলার। বাকিদের মধ্যে ১ জন নোয়াখালীর, ২ জন চট্টগ্রাম জেলার, ১ জন চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের, ১ জন কুমিল্লা সিটি করপোরেশনের, ২ জন ফেনীর, ১ জন সিলেট জেলার এবং ১ জন বগুড়ার বাসিন্দা ছিলেন।

তাদের ৫ জনের বয়স ছিল ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে, ৮ জনের বয়স ৫১ থেকে ৬০ বছরেরর মধ্যে, ৬ জনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে, ২ জনের বয়স ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে ছিল।

বুলেটিনে জানানো হয়, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ৪২টি ল্যাবে ৯ হাজার ৭৮৮টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। শনাক্ত রোগীর বিবেচনায় সুস্থতার হার ১৯ দশমিক ২১ শতাংশ, মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৪৬ শতাংশ।

গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে ২৩১ জনকে আইসোলেশনে নেওয়া হয়েছে; সারা দেশে এখন আইসোলেশনে রয়েছেন ৩ হাজার ৩৮৩ জন।

এই সময়ে হোম ও প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে নেওয়া হয়েছে ৩ হাজার ৪১২ জনকে। সারা দেশে ৫০ হাজার ৮৮ জন এখন কোয়ারেন্টিনে রয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here