দূরত্বের’ ঈদে সারা দেশে মহামারী-মুক্তির প্রার্থনা

0
425

করোনাভাইরাসের মহামারীর মধ্যে এবার অন্যরকম ঈদ পালন করছে দেশবাসী।

ঈদ জামাত শেষে কোলাকুলি-হাত মেলানোর যে রীতি মানুষে মানুষে সম্প্রতির নজির হয়ে আছে বহুযুগ ধরে, তা এবার ফিকে হয়েছে সংক্রমণের আতঙ্কে।

ভাইরাস থেকে বাঁচতে, অন্যকে বাঁচাতে দূরত্ব ছিল; তবু মানুষ এক কাতারে ঈদ জামাতে দাঁড়িয়ে হাত তুলে সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রাথর্না করেছেন মহামারী থেকে মুক্তির জন্য।

বরিশাল:

বিশ্ব মহামারী করোনাভাইরাস থেকে মুক্তির জন্য প্রার্থনা করা হয় বরিশালের ঈদ জামাতে। 

জেলায় প্রথম ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয় সকাল সাড়ে ৭টায় নগরীর চকবাজার জামে এবাদুল্লাহ মসজিদে।

নামাজ শুরুর আগে মুসল্লিদের সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কাতারে দাড়ানোর নির্দেশনা দেন মসজিদের খতিব নূরুর রহমান বেগ। মুসল্লিরা নির্দেশনা মেনে ঈদের নামাজ আদায় করেন। তাদের মুখে ছিল মাস্ক।

মসজিদের প্রবেশ পথে নামাজ আদায় করতে আসা মুসল্লিদের জন্য হাত ধোয়ার জন্য সাবান ও হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা রাখা হয়। মুসল্লিরা মাস্ক পরে সামাজিক দুরত্ব বজায় রেখে কাতারে দাড়িয়ে ঈদের নামাজ আদায় করেন। মহামারী করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি পেতে দোয়া করেন তারা।

নামাজ শেষে সারিবদ্ধভাবে মসজিদ থেকে বেরিয়ে যাওয়ার সময় মুসল্লিরা একে অপরের সঙ্গে মুখে কুশল বিনিময় করেন। তবে করোভাইরাস সংক্রমণ এড়াতে কোলাকুলি কেউ করেন নি।

ষাটগম্বুজ মসজিদে বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশিদ, প্রশাসনের কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিরাও ঈদের নামাজ আদায় করেন।

মুসল্লিরা বলেন, এবারের ঈদে মনে আনন্দ নেই। নামাজ পড়তে হবে তাই পড়া, দেশে যেভাবে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছে তা থেকে যেন সবাই মুক্তি পেতে পারে সেই দোয়াই করেছেন আল্লাহর কাছে।

নামাজ আদায় শেষে বাগেরহাটের জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশিদ সাংবাদিকদের বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে স্বাস্থ্যবিধি মেনে যেন সবাই নামাজ আদায় করতে পারেন সেই ব্যবস্থা রাখা হয়েছিল। মুসল্লিরাও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে পবিত্র ঈদুল ফিতরের নামাজ আদায় করেছেন।

ময়মনসিংহ:

ময়মনসিংহে এবার প্রায় ১১ হাজার মসজিদে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে ময়মনসিংহ নগরীর আঞ্জুমানে ঈদগাহ ময়দানে সকাল ৮টায় ঈদের প্রধান  জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার মধ্যেই সকালে মুসল্লিরা ঈদ জামাতে অংশ নিতে মসজিদে যান। করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে সংক্রমণ রোধে সবার মখে ছিল মাস্ক। মুসল্লিরা করোনাভাইরাসের মহামারী থেকে রক্ষায় মোনাজাত করেছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here