নরসিংদীতে লাশ রেখে গেল স্বজনরা, দাফন করল পুলিশ

0
172

শ্বাসকষ্ট নিয়ে নরসিংদী সদর হাসপাতালে ভর্তি এক নারীর মৃত্যুর পর কোভিড-১৯ সন্দেহে স্বজনরা লাশ না নেওয়ায় পুলিশের তত্ত্বাবধানে তাকে দাফন করা হয়েছে।

শুক্রবার নরসিংদী পৌর কবরস্থানে ফেরদৌসী বেগম নামে ২৭ বছর বয়সী ওই নারীকে দাফন করা হয় বলে নরসিংদী মডেল থানার ওসি সৈয়দুজ্জামান জানান।

ফেরদৌসীর স্বামী আল-আমিন ১০ বছর ধরে মালদ্বীপে থাকেন। নরসিংদী পৌরসভার শালিধার এক বাড়িতে পঞ্চম শ্রেণি পড়–য়া ছেলেকে নিয়ে ভাড়া থাকতেন ফেরদৌসী।

নরসিংদী সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার মো. শামীম জানান, দাফনের আগে ফেরদৌসীর নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে। ফলাফল হাতে পেলে বোঝা যাবে, তিনি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন কি না।

থানা ও হাসপাতালে কথা বলে জানা যায়, মাথা ব্যথা ও শ্বাসকষ্ট নিয়ে বৃহস্পতিবার দুপুরে সদর হাসপাতালে ভর্তি হন ফেরদৌসী বেগম। সন্ধ্যা ৭টার দিকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

ওসি সৈয়দুজ্জামান বলেন, করোনাভাইরাসে মৃত্যু হয়েছে মনে করে স্বজনরা ফেরদৌসীর লাশ বুঝে না নিয়েই চলে যান। পরে পুলিশে খবর দেওয়া হয়।

তখন পুলিশ সুপার প্রলয় কুমার জোয়ার্দ্দারের নির্দেশে নরসিংদী মডেল থানা পুলিশ লাশ বুঝে নেয়। পরে শুক্রবার পুলিশের ব্যবস্থাপনায় নিয়ম মেনে ফেরদৌসীকে দাফন করা হয় বলে জানান ওসি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here