অর্ধেক যাত্রী নিয়ে আগের ভাড়ায়ই চলবে ট্রেন

0
479

করোনাভাইরাস সঙ্কটকালে বিধি-নিষেধ শিথিল করায় দুই মাস পর রোববার থেকে রেল চলাচল শুরু হবে, যার টিকিট পাওয়া যাবে শুধু অনলাইনে।

রেলপথ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম সুজন জানিয়েছেন, এই দফায় শুধু আন্তঃনগর ট্রেনগুলো ধারণ ক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলবে, তবে ভাড়া বাড়বে না।

শনিবার রেলভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা জানান তিনি।

রেলমন্ত্রী বলেন, “আগামীকাল ৮ জোড়া ট্রেন পূর্বের শিডিউল অনুযায়ী যাত্রা শুরু করবে এবং ৩ জুন থেকে আরও ১১ জোড়া ট্রেন যাত্রা শুরু করবে। মোট ৩৮টি ট্রেন চলাচল শুরু হচ্ছে।”

সুবর্ণ এক্সপ্রেস, সোনারবাংলা এক্সপ্রেস, কালনী এক্সপ্রেস, পঞ্চগড় এক্সপ্রেস, বনলতা এক্সপ্রেস, লালমনিরহাট এক্সপ্রেস, উদয়ন ও পাহাড়িকা এক্সপ্রেস ও চিত্রা এক্সপ্রেস ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, পঞ্চগড়, লালমনিরহাট, রাজশাহী ও খুলনা রুটে রোববার থেকে যাত্রা শুরু করছে আগের সময়সূচি অনুযায়ী।

এছাড়া ৩ জুন থেকে তিস্তা এক্সপ্রেস, বেনাপোল এক্সপ্রেস, নীলসাগর এক্সপ্রেস, রূপসা এক্সপ্রেস, কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস, মধুমতি এক্সপ্রেস, মেঘনা এক্সপ্রেস, কিশোরগঞ্জ এক্সপ্রেস, উপকূল এক্সপ্রেস, ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেস, কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস চালু হবে।

আপাতত অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলবে শুধু আন্তঃনগর ট্রেন  

নূরুল ইসলাম সুজন বলেন, “স্বাস্থ্য বিধি মেনে অর্ধেক টিকেটে বিক্রির মাধ্যমে ট্রেন চালু করা হবে। যদি ট্রেন ৫০০ সিটের হলে ২৫০ সিটের টিকেট বিক্রি করা হবে। যাতে এক সিট থেকে দূরত্ব নিশ্চিত করে অন্য যাত্রী বসতে পারে।”

অর্ধেক যাত্রী হলেও টিকেটের দাম বাড়ছে না জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, “সরকারি সিদ্ধান্ত ছাড়া ভাড়া বাড়াতে পারি না। রেলের ভাড়া যা আছে, তাই থাকবে।

“বাসের ভাড়া বৃদ্ধি হলে রেলে চাপ বাড়বে। ট্রেনগুলোর সাথে লাগেজ ভ্যান যুক্ত থাকবে যাতে কৃষকরা শাকসবজি ফলমূল পরিবহন করতে পারে।”

ভিড় এড়াতে টিকেট কাউন্টার থাকছে না জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, “টিকেটে পুরোটাই অনলাইনে বিক্রি হবে আজ থেকে। কাউন্টার থেকে কোনো টিকেটে বিক্রি করা হবে না। ৫ দিন আগে টিকেট ক্রয় করা যাবে।

“ট্রেনে কোনো খাবারের ব্যবস্থা থাকছে না এবং শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কক্ষে বালিশ-কাঁথা সরবরাহ করছি না।”

টিকেট ছাড়া কোন যাত্রী যেন রেলস্টেশনে ঢুকতে না পারে, সে বিষয়ে কড়াকড়ি থাকবে বলে জানান মন্ত্রী।

একে একে সবই খুলছে, ঝুঁকিও বাড়ছে  

তবে জরুরি প্রয়োজন না হলে এই সময়ে ট্রেনেও ভ্রমণ না করার আহ্বান জানিয়ে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের কথাও বলেন নুরুল ইসলাম সুজন।

“রেল যাত্রায় মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক, রেলের এ বগি থেকে ও বগি চলাফেরা করা যাবে না।

রেল বগির এক দরজা দিয়ে প্রবেশ অন্য দরজা দিয়ে বের হতে হবে। যাত্রীদের তাপমাত্রা পরিমাপের জন্য ৬০ মিনিট আগে স্টেশনে আসতে হবে।”

দর্শনার্থীদের জন্য প্লাটফর্ম টিকেট বিক্রি বন্ধ থাকবে বলে জানান মন্ত্রী।

ঢাকা বিমানবন্দর জয়দেবপুর মাসিক টিকেটে বন্ধ থাকবে। কমলাপুরে স্টেশন ছাড়া বিমানবন্দর, জয়দেবপুর, নরসিংদীতে ট্রেন থাকবে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here