মহামারীতে অর্থকষ্টে তরুণ, বাইক বেচতে গিয়ে নিখোঁজ

0
203

করোনাভাইরাস মহামারীর মধ্যে আর্থিক সঙ্কটে পড়ে নিজের মোটর সাইকেল বিক্রির জন্য বাসা থেকে বের হয়ে নিখোঁজ হয়েছেন সুমন হাওলাদার (৩০) নামের এক তরুণ।

শনিবার বিকালে বের হওয়ার পর রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত সুমন না ফেরায় রাজধানীর ভাটারা থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন তার বাবা মুজিবুর হাওলাদার।

মুজিবুর বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে জানান, তার ছেলে গুলশান এক নম্বরের একটি প্রসাধনীর দোকানে কাজ করতেন।

“করোনাভাইরাস সংকটের কারণে দীর্ঘদিন দোকান বন্ধ থাকায় পরিবারে অর্থিক সংকট দেখা দেয়। কিছু ঋণও হয়। এজন্য সে তার মোটর সাইকেলটি বিক্রির জন্য অনলাইনে বিজ্ঞাপন দিয়েছিল।”

এরই মধ্যে সুমন দোকানে চাকরি করতেন সেটি স্বল্পপরিসরে খুলেছে জানিয়ে মুজিবুর বলেন, “শনিবার দোকান বন্ধ করে বিকালে কুড়িল শেওড়া বাজারের (যমুনা ফিউচার পার্কের সামনে) বাসায় আসে। কিছুক্ষণ পরেই সে একটি ফোন পেয়ে বিকাল সাড়ে চারটার দিকে বাসা থেকে বের হয়ে যায়।

“মোটর সাইকেলটি কেনার জন্য একজন দেখতে চেয়েছে এমন কথা বলে বের হয়ে যাওয়ার পর না ফেরায় সোয়া ৬টার দিকে ফোন করা হলে আসছি বলে জানায়। তারপরও না ফেরায় রাত পৌনে আটটার দিকে আবারও কল করা হলে তার ফোন ব্যস্ত পাওয়া যায়।

সুমনের বাবা বলেন, “রাত সাড়ে আটটার দিকে সুমনের ফোন থেকে আমার ছোট ছেলের ফোনে একজন কল করে জানায় সে রাতে ফিরবে না, সকালে ফিরবে। বন্ধুর বাসায় আছে।”

এরপরে তার সাথে আর যোগাযোগ হয়নি এবং রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত বাসায় ফেরেননি বলে জানান মুজিবুর।

“আমার ধারণা মোটর সাইকেল কেনার নামে ডেকে নিয়ে আমার ছেলেকে কেউ আটকে রেখেছে।”

গাড়ি চালক মুজিবুরের তার দুই ছেলে ও এক মেয়ের মধ্যে সুমন সবার বড়।

বিবাহিত সুমনের পাঁচ বছর এবং সাত মাসের দুই সন্তান রয়েছে।

সুমন নিখোঁজ হওয়ার বিষয়ে ভাটারা থানার ওসি মোকতারুজ্জামান বলেন, “আমরা সর্বাত্মক চেষ্টা করছি সুমনকে খুঁজে বের করতে। ইতিমধ্যে পুলিশ মাঠে নেমেছে।”

শনিবার রাতে তার সর্বশেষ অবস্থান পল্টনের দিকে পাওয়া গেছে বলে জানান তিনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here