ইংল্যান্ডের ইনিংসে হঠাৎ ধস

0
273

ন স্টোকস আর ডম সিবলি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বোলারদের রীতিমত কাঁদিয়ে ছাড়ছিলেন। সেখান থেকে দারুণভাবে লড়াইয়ে ফিরেছে ক্যারিবীয়রা। ৩ উইকেটে ৩৪১ থেকে হঠাৎ ধসে ৭ উইকেটে ৩৯৫ রানে পরিণত হয়েছে ইংল্যান্ড। অর্থাৎ ৫৪ রানে ৪ উইকেট হারিয়েছে জো রুটের দল।

ওল্ড ট্রাফোর্ডে টস জিতে ইংল্যান্ডকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়ে মুখে চওড়া হাসি ফুটেছিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক জেসন হোল্ডারের। টেস্টের বৃষ্টিবিঘ্নিত প্রথম দিনের প্রথম দুই সেশনে যে ইংলিশ ব্যাটসম্যানদের বেশ বিপদের মুখেই রেখেছিলেন ক্যারিবীয় বোলাররা।

২৯ রানে ২ আর ৮৭ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে ধুঁকছিল ইংল্যান্ড। চতুর্থ উইকেটে এসে সব হিসেব নিকেশ নিমেষেই পাল্টে দেন ডম সিবলি আর বেন স্টোকস। আগের দিনই হাফসেঞ্চুরি তুলে নেন দুজন। ৩ উইকেটে ২০৭ রান নিয়ে প্রথম দিন শেষ করে স্বাগতিকরা।

দ্বিতীয় দিনে দুজনই পেয়েছেন সেঞ্চুরি। তাতে বড় সংগ্রহের পথটা পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল ইংল্যান্ডের। কিন্তু ফের কাঁটা বিছিয়ে দিলেন ক্যারিবীয় বোলাররা। স্টোকসের সঙ্গে ২৬০ রানের জুটি গড়া ডম সিবলিকে হারানোর পরই বিপদ শুরু হয় ইংলিশদের। 

৩৭২ বলে মাত্র ৫ বাউন্ডারিতে ১২০ রান করা সিবলিতে সাজঘরের পথ দেখান রস্টন চেজ। এরপর অলি পোপকেও উইকেটে থিতু হতে দেননি। ৭ রানে তাকে এলবিডব্লিউ করেন ক্যারিবীয় এই অফস্পিনার। 

সেই ধাক্কায় ঘাবড়ে যাননি বেন স্টোকস, যাচ্ছিলেন ডাবল সেঞ্চুরির দিকে। কিন্তু কেমার রোচ এক ওভারে এসে জোড়া আঘাত হেনে বসেন। দারুণ খেলতে থাকা স্টোকসকে উইকেটের পেছনে তিনি ক্যাচ বানান ১৭৬ রানে। পরের বলেই গালিতে ক্রিস ওকসকে (০) শিকার করেন। বড় ধাক্কা খায় ইংল্যান্ড।

ক্যারিয়ার নিয়ে শঙ্কায় থাকা জস বাটলার উইকেট ধরে আছেন প্রাণপনে। ৫৮ বলে ৪ বাউন্ডারিতে ২৬ রানে অপরাজিত তিনি। সঙ্গে স্যাম কুরান এখনও রানের খাতা খুলতে পারেননি। এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ৭ উইকেটে ৩৯৭ রান। দ্বিতীয় দিনের তৃতীয় সেশনের খেলা চলছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here