বাংলাদেশের কাছে হেরে বিদায়ের পর মরগ্যান ভেবেছিলেন…

0
268

আর হবে না। এই বুঝি গেলাম! বাংলাদেশের বিপক্ষে হেরে বিশ্বকাপের প্রথম রাউন্ড থেকে বাদ পড়ার পর ইয়ন মরগ্যানের মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছিল সব নেতিবাচক চিন্তা। ভেবেছিলেন, নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেয়া হবে তাকে।

সেই ২০১৫ বিশ্বকাপের কথা। গ্রুপপর্বে ইংল্যান্ডের মতো হট ফেবারিটকে বিদায় করে কোয়ার্টার ফাইনালের টিকিট নিশ্চিত করেছিল বাংলাদেশ। ওই সময় ইংলিশদের অধিনায়ক ছিলেন মরগ্যান। 

বিশ্বকাপে এমন ব্যর্থতা। স্বভাবতই দল নিয়ে কাঁটাছেড়া হওয়ার কথা। সেটা হয়েছেও। কিন্তু মরগ্যানকে নেতৃত্ব থেকে সরিয়ে দেয়ার মতো ভুল করেনি ইংল্যান্ড। বরং তার ওপরই আস্থা রেখে নতুন করে দল গুছিয়েছে। ফলটা মিলেছে পরের বিশ্বকাপেই। 

যে দলটি চার বছর আগে গ্রুপপর্ব থেকে বিদায় নিয়েছিল, সেই দলটিই ২০১৯ সালে এসে প্রথমবারের মতো ওয়ানডে বিশ্বকাপ শিরোপা হাতে তুলেছে এবং সেটা ওই ‘ব্যর্থ’ অধিনায়ক মরগ্যানের নেতৃত্বেই।

মরগ্যান মনে করছেন, ২০১৫ বিশ্বকাপে ব্যর্থতার পর তাকে যে সরিয়ে দেয়া হয়নি, সেটি ছিল বড় এক সৌভাগ্য। বিশ্বকাপ জয়ের এক বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে আইসিসির ক্রিকেট পডকাস্টে ইয়ান বিশপ আর নাসির হোসেনের সঙ্গে অনুভূতি শেয়ার করতে গিয়ে এমন কথা বলেন ইংল্যান্ডের ওয়ানডে অধিনায়ক।

মরগ্যান মনে করেন, ২০১৫ বিশ্বকাপের ব্যর্থতার পর ইংলিশ ক্রিকেটে সবচেয়ে গুরুত্ববহ পরিবর্তন ছিল ডিরেক্টর অব ক্রিকেট হিসেবে সাবেক অধিনায়ক অ্যান্ড্রু স্ট্রাউসকে নিয়োগ দেয়া। 


ইংল্যান্ডের বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কের ভাষায়, ‘বিশ্বকাপের সময় কি হয়েছিল, সেটা তিনি (স্ট্রাউস) সামনে থেকেই দেখেছেন। তিনি বুঝতে পেরেছিলেন, এই দলটিতে কিছু গুরুত্বপূর্ণ পরিবর্তন আনা দরকার।’

তবে এই পরিবর্তনের ধকলটা অধিনায়কের ওপর দিয়ে যায়নি বলে নিজেকে ভাগ্যবান ভাবছেন মরগ্যান। তিনি বলেন, ‘একজন মানুষের এমন প্রভাবশালী পদে আসা এবং খুব দ্রুত সব কিছু বদলে দেয়া ছিল খুব অর্থপূর্ণ ব্যাপার। আমাকে দলের অধিনায়ক হিসেবে রাখা হয়, আমি খুবই ভাগ্যবান যে আমাকে দায়িত্ব চালিয়ে যেতে দেয়া হয়েছিল।’

নতুন কোচ ট্রেভর বেলিসকে নিয়ে আসাও দলের মানসিকতা পরিবর্তনে বড় ভূমিকা রেখেছে বলে মনে করেন মরগ্যান। তার কথা, ‘ট্রেভর বেলিস কোচ হিসেবে নিয়োগ পাওয়ার পর আমরা আগ্রাসী ক্রিকেট খেলা শুরু করি। যেটা আমাদের সবার জন্যই ছিল রোমাঞ্চকর ব্যাপার।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here