ভ্যাটের বাইরে ৭৭ শতাংশ প্রতিষ্ঠান

0
62

ব্যবসা করতে গেলে ভ্যাট বিভাগের দেওয়া ব্যবসায় শনাক্তকরণ নম্বর (বিআইএন) লাগবে আপনার, যা ভ্যাট নিবন্ধন নামে সমধিক পরিচিত। অথচ রাজধানী ও আশপাশের বড় বিপণিবিতানগুলোর শত শত ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের কিনা এই নিবন্ধন নেই। সম্প্রতি জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) ভ্যাট গোয়েন্দাদের এক জরিপে দেখা গেছে, প্রতি পাঁচটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের মধ্যে চারটিরই বিআইএন নেই। নিবন্ধন ছাড়াই দিব্যি ব্যবসা করে চলেছে তারা।

রাজধানী ঢাকা, নারায়ণগঞ্জ ও নরসিংদীর নামকরা ১৭টি বিপণিবিতানে ওই জরিপ করে ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তর। গত ২৪ থেকে ৩১ মে ভ্যাট গোয়েন্দাদের চারটি দল জরিপটি চালায়।

জরিপের ফল বলছে, ভ্যাট গোয়েন্দারা বিপণিবিতানগুলোর মোট ২ হাজার ১৩৩টি দোকানে গিয়ে মাত্র ৪৮২টিতে ভ্যাট নিবন্ধন থাকার প্রমাণ পেয়েছেন। বাকি ১ হাজার ৬৫১টি প্রতিষ্ঠান ভ্যাট নিবন্ধন ছাড়াই ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। অর্থাৎ, ৭৭ দশমিক ৩৬ শতাংশ দোকানের ভ্যাট নিবন্ধন নেই। তারা ক্রেতাদের কাছ থেকে ভ্যাট নিলেও তা সরকারি কোষাগারে জমা পড়ে না। অথচ এসব প্রতিষ্ঠানের ভ্যাট নিবন্ধন ছাড়া ব্যবসা করার কোনো সুযোগই থাকার কথা নয়। সম্প্রতি জরিপের ফলাফল প্রতিবেদন এনবিআরের চেয়ারম্যানসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সামনে উপস্থাপন করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ভ্যাট গোয়েন্দা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মইনুল খান প্রথম আলোকে বলেন, ‘ভয়ভীতি দেখানোর জন্য নয়, আমরা শুধু দেখতে চেয়েছি কারা ভ্যাট নিবন্ধন নেননি। আমরা যেসব প্রতিষ্ঠানে ভ্যাট নিবন্ধন পাইনি, তাদের নিবন্ধন নেওয়ার অনুরোধ করেছি।’

এদিকে জরিপের পরে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানগুলোর ভ্যাট নিবন্ধন নেওয়ার প্রবণতা বেড়েছে। জরিপের পরের এক মাসে ভ্যাট নিবন্ধন নেওয়ার সংখ্যা পাঁচ গুণ বেড়েছে।

ভ্যাট গোয়েন্দারা পাঁচ দিন ধরে রাজধানীর বিপণিবিতানগুলোর মধ্যে বাড্ডার সুবাস্তু নজর ভ্যালি, বারিধারা ডিওএইচএসের অনন্যা শপিং সেন্টার, গুলশানের নাভানা টাওয়ার, উত্তরার আরএকে শপিং কমপ্লেক্স, ট্রপিক্যাল আলাউদ্দিন টাওয়ার, ধানমন্ডির সানরাইজ প্লাজা, অরচার্ড পয়েন্ট, মোহাম্মদপুরের টোকিও স্কয়ার; সাভারের সিটি সেন্টার, সাভার নিউমার্কেট; নারায়ণগঞ্জের মার্ক টাওয়ার, সায়েম প্লাজা, সমবায় নিউমার্কেট, আল হাকিম সেন্টার, ডেমরার হাজী হোসেন প্লাজা; নরসিংদীর ইনডেক্স প্লাজা, জামান শপিং কমপ্লেক্সে জরিপ করে।

এ প্রসঙ্গে বাংলাদেশ দোকান মালিক সমিতির সভাপতি মো. হেলাল উদ্দিন বলেন, ছোট ছোট ব্যবসায়ীদের ভ্যাট আইনে ছাড় দেওয়া হয়েছে। যাঁদের বার্ষিক লেনদেন ৫০ লাখ টাকার কম, তাঁদের ভ্যাট দিতে হবে না। তাহলে তাঁদের কেন ভ্যাট নিবন্ধন নিতে হবে? তিনি আরও বলেন, ‘আমরা ভ্যাট নিবন্ধন নিতে চাই। হিসাব-নিকাশ রাখার জন্য ভ্যাটের ইলেকট্রনিক ফিসক্যাল ডিভাইস (ইএফডি) মেশিন দিতে হবে। তাহলে সরকারের ভ্যাটও নিশ্চিত হবে।’

নগণ্য পরিমাণ ভ্যাট প্রদান

যে ৪৮২টি প্রতিষ্ঠানের ভ্যাট নিবন্ধন আছে, তাদের মধ্যে নিয়মিত রিটার্ন দেয় ৪৪৫টি। নিয়মিত রিটার্ন প্রদানকারীদের মধ্যে আবার মাসে পাঁচ হাজার টাকার বেশি ভ্যাট দেয়, এমন প্রতিষ্ঠান মাত্র ১১৩টি। বাকিগুলো পাঁচ হাজার টাকার কম ভ্যাট দেয়।

ঢাকায় ভ্যাটের আওতায় ৪০ শতাংশ

জরিপ অনুযায়ী, রাজধানীর আটটি অভিজাত বিপণিবিতানের ১ হাজার ৬৪টি দোকানে জরিপ করা হয়। এর মধ্যে মাত্র ৪২৮টি প্রতিষ্ঠানের ভ্যাট নিবন্ধন আছে। অর্থাৎ, ভ্যাটের আওতায় আছে মাত্র ৪০ শতাংশ। এক দশকের বেশি সময়ের পুরোনো সুবাস্তু নজর ভ্যালি শপিং মলের ৫২৬টি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের মধ্যে মাত্র ২৬টির ভ্যাট নিবন্ধন আছে। ধানমন্ডির সানরাইজ প্লাজায় ৫৫টি দোকানের মধ্যে মাত্র ২৫টির ভ্যাট নিবন্ধন আছে।

সাভার–নরসিংদীর চিত্র

সাভারের দুটি বিপণিবিতানের ৪৫১টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে মাত্র ৪১টিতে ভ্যাট নিবন্ধন থাকার তথ্য পেয়েছেন ভ্যাট গোয়েন্দারা।

নরসিংদী শহরের ইনডেক্স প্লাজার ২২৮টি প্রতিষ্ঠানের মধ্য মাত্র একটিতে ভ্যাট সনদ পেয়েছেন ভ্যাট গোয়েন্দারা। আর জামান শপিং কমপ্লেক্সের ২০টি প্রতিষ্ঠানের একটিরও ভ্যাট নিবন্ধন নেই।

নারায়ণগঞ্জে মাত্র ৫ শতাংশ প্রতিষ্ঠান

নারায়ণগঞ্জের পাঁচটি বিপণিবিতানের ৩৬৬টি দোকানের মধ্যে মাত্র ১৭টিতে বা ৫ শতাংশ প্রতিষ্ঠানে ভ্যাট নিবন্ধনের তথ্য পাওয়া গেছে। সেখানকার মার্ক টাওয়ারের ৩১টি দোকানের মধ্যে মাত্র একটি, সমবায় মার্কেটের ৮১টির মধ্যে মাত্র একটি দোকান ভ্যাটের আওতায় রয়েছে। এ ছাড়া ডেমরার হাজী হোসেন প্লাজার ১৮৭টি দোকানের মধ্যে মাত্র আটটির ভ্যাট নিবন্ধন আছে।

ভ্যাট আইন কী বলে

নতুন ভ্যাট আইন অনুযায়ী, সিটি করপোরেশন ও পৌরসভা এলাকায় কোনো ব্যবসা চালু করতে হলে ভ্যাট নিবন্ধন নিতে হবে। ব্যবসা শুরুর অন্তত ১৫ দিন আগে এনবিআর থেকে বিআইএন নিয়ে তবেই ব্যবসা পরিচালনায় যেতে হবে। আর এসব এলাকার বাইরে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানের বার্ষিক লেনদেন তিন কোটি টাকার কম হলে ভ্যাট নিবন্ধন নিতে হবে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here