বিশ্বে করোনায় আরও ৮৬৫২ জনের মৃত্যু

0
55

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়েই চলেছে। গত ২৪ ঘণ্টায় এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে বিশ্বে আরও আট হাজার ৬৫২ জনের মৃত্যু হয়েছে। একই সময়ে নতুন রোগী শনাক্ত হয়েছে ছয় লাখ ৩৯ হাজার ৮৬৩ জন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন চার লাখ পাঁচ হাজার ১৯৯ জন।

শনিবার (২৩ জুলাই) সকাল সাড়ে ৮টায় আন্তর্জাতিক পরিসংখ্যানভিত্তিক ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

এর আগে গতকাল (২৩ জুলাই) আট হাজার ১৩১ জনের মৃত্যু এবং পাঁচ লাখ ৪৬ হাজার ৬৪৪ জন শনাক্তের খবর জানিয়েছিল ওয়ার্ল্ডোমিটার। আর একদিনে সুস্থ হয়েছিল তিন লাখ ৬৯ হাজার ৮৯৭ জন।

ওয়ার্ল্ডোমিটারের সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, সারাবিশ্বে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন ১৯ কোটি ৪০ লাখ ১০ হাজার ৪৬ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৪১ লাখ ৫৯ হাজার ৫১১ জন। এখন পর্যন্ত এ ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ১৭ কোটি ৬১ লাখ ১৬ হাজার ৬১৭ জন।

করোনা সংক্রমণ ও মৃত্যুতে এখনো বিশ্বে শীর্ষে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছে তিন কোটি ৫২ লাখ ৮৩ হাজার ৫০ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ছয় লাখ ২৬ হাজার ৬৫৮ জন। আর সুস্থ হয়েছেন দুই কোটি ৯৪ লাখ ৯৭ হাজার ৮৭৬ জন।

তালিকায় দ্বিতীয় অবস্থানে আছে ভারত। দেশটিতে এ পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তিন কোটি ১৩ লাখ ৩১ হাজার ১৪৫ জন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন চার লাখ ২০ হাজার ৩৮ জন। আর এ ভাইরাস থেকে সুস্থ হয়ে উঠেছেন তিন কোটি চার লাখ ৯৫ হাজার ৩৫২ জন।

তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ল্যাটিন আমেরিকার দেশ ব্রাজিল। তবে মৃত্যুর দিক থেকে দ্বিতীয় অবস্থানে দেশটি। সেখানে এখন পর্যন্ত মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে পাঁচ লাখ ৪৮ হাজার ৪২০ জনে। এছাড়া এখন পর্যন্ত দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছে এক কোটি ৯৬ লাখ ৩২ হাজার ৪৪৩ জন। আর এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন এক কোটি ৮৩ লাখ ৩১ হাজার ৪৬২ জন।

সংক্রমণ ও মৃত্যুর তালিকায় এর পরের স্থানগুলোতে রয়েছে রাশিয়া, ফ্রান্স, যুক্তরাজ্য, তুরস্ক, আর্জেন্টিনা, কলম্বিয়া ও ইতালি।

তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান এখন ২৬ নম্বরে। দেশে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হিসেবে শনাক্ত হয়েছেন হয়েছেন ১১ লাখ ৪৬ হাজার ৫৬৪ জন। এর মধ্যে মারা গেছেন ১৮ হাজার ৮৫১ জন। আর সুস্থ হয়ে উঠেছেন নয় লাখ ৭৫ হাজার ৬১৬ জন।

২০১৯ সালের ডিসেম্বরে চীনের উহানে প্রথম করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়। দেশটিতে করোনায় প্রথম রোগীর মৃত্যু হয় ২০২০ সালের ৯ জানুয়ারি। ওই বছরের ১৩ জানুয়ারি চীনের বাইরে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় থাইল্যান্ডে।

দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয় গত বছরের ৮ মার্চ। এরপর কয়েক দফায় পরিস্থিতির উন্নতি-অবনতি হয়। তবে গত কয়েক দিনের পরিস্থিতি সবচেয়ে ভয়াবহ অবস্থায় রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here