সরকারের দ্রুত পদক্ষেপে করোনায় বড় ক্ষতি হয়নি : প্রধানমন্ত্রী

0
19
4709

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সরকারের দ্রুত পদক্ষেপের কারণে কভিড-১৯ মহামারি বাংলাদেশে বড় ধরনের ক্ষতি করতে পারেনি। তিনি সোমবার নিউ ইয়র্কভিত্তিক জনপ্রিয় সাময়িকী ফরচুনে প্রকাশিত এক নিবন্ধে লেখেন, ‘বাংলাদেশ কভিড-১৯-এর শিকার হতে পারত। কিন্তু আমরা আমাদের সর্বাধিক ঝুঁকিতে থাকা জনগণ ও ব্যবসাগুলোর সুরক্ষায় দ্রুত পদক্ষেপ গ্রহণ করেছি।’

নিবন্ধে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘কভিড-১৯-এর বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আমাদের প্রচেষ্টা ছিল, মানুষের চাহিদার দিকে লক্ষ রেখে জীবন ও জীবিকার মধ্যে সমন্বয় করা এবং এরপর ব্যবসাগুলোকে প্রণোদনা দেওয়া, যার মাধ্যমে সাধারণ মানুষের কর্মসংস্থান হয়েছে। গত বছর মহামারির শুরুতে, সরকার হতদরিদ্র, প্রতিবন্ধী, বয়োজ্যেষ্ঠ, অভিবাসী ও নিঃস্ব-অসহায় নারীদের ত্রাণ দিয়েছে। আমরা খুব দ্রুত চার কোটি বা দেশের এক-চতুর্থাংশ মানুষের মাঝে অর্থ বিতরণসহ বিভিন্ন সহায়তা দিই। মোট ২২.১ বিলিয়ন মার্কিন ডলার বা আমাদের জিডিপির প্রায় ৬.২ শতাংশের এই সহায়তা ২৮টি পৃথক প্রণোদনা প্যাকেজের মাধ্যমে দেওয়া হয়েছে। এ ছাড়া আমরা আরো কয়েক শ কোটি মার্কিন ডলার ভ্যাকসিন ক্রয় ও অন্যান্য জরুরি ব্যবস্থা গ্রহণে ব্যয় করেছি।’

শেখ হাসিনা আরো বলেন, ‘তৈরি পোশাক খাতের মতো রপ্তানিসংশ্লিষ্ট ব্যবসার কর্মীদেরও আমরা কয়েক শ কোটি ডলার দিয়েছি। কর্মীদের আর্থিক বোঝা লাঘবের জন্য ওই ঋণগুলোর সুদ ঋণগ্রহীতা ও সরকারের মাঝে ভাগ করে নেওয়া হয়। গত বছর দুই মাসের জন্য এবং এরপর পরবর্তী ১২ মাসের জন্য বাণিজ্যিক ঋণের সব সুদ বস্তুত মওকুফ করে দেওয়া হয়।’

গত বছরের নভেম্বর থেকে জিডিপি প্রবৃদ্ধি প্রায় ২ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ এখন বিশ্বের পাঁচটি দ্রুততম ক্রমবর্ধমান অর্থনীতির মধ্যে একটি। গত ১০ বছরেরও বেশি সময় বাংলাদেশ তার দারিদ্র্যের হার ৩১.৫ শতাংশ থেকে ২০.৫ শতাংশে নামিয়ে এনেছে। ২০২১ অর্থবছরে আমাদের মাথাপিছু আয় এক দশকে তিন গুণ বেড়ে দুই হাজার ২২৭ ডলারে দাঁড়িয়েছে, যা আমাদের প্রতিবেশী ভারত ও পাকিস্তানের চেয়ে বেশি। আমাদের বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ সর্বকালের সর্বোচ্চ ৪৮ বিলিয়ন ডলারে পৌঁছেছে। মহামারি আমাদের অগ্রগতিতে বাধা দিতে ব্যর্থ হয়েছে।’

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here